তাজা মাছ চেনার ১০ টি সহজ টিপস

জীবনে পচা মাছ কিনে মায়ের বকুনি বউয়ের ধাতানি অথবা মাছ কিনতে গিয়ে ঠকেননি এমন পুরুষ কমই আছেন। তবে হতাশার কিছু নেই, আমরা এমন কিছু টিপস্ আপনাকে দিব যাতে আপনি মাছ কিনে আর কক্ষনো না ঠকেন। 

মাছে যতই ক্যামিকেল অথবা রং দেওয়া হোক না কেন, তাজা ও ক্যামিকেল মুক্ত মাছ কিনার আছে কিছু দারুণ উপায়। নিম্নের ১০ টি বিষয়ে একটু নজর দিতে পারলে জীবনে আর কখনো মাছ কিনে ঠকতে হবে না আপনাকে। জেনে নিন ১০ টি টিপস অ্যান্ড ট্রিকসঃ

১) মাছ কিনতে গিয়ে কখনো তাড়াহুড়া করবেন না, তাড়াহুড়া করে কিনতে গেলে দোকানি পচা মাছ গছিয়ে দিতে পারে। ভাল মাছ কিনতে হলে একটু সময় নিয়ে দেখে শুনে মাছ কিনবেন।

২) দুই তিন জন মাছ ব্যবসায়ীর সাথে ভাল সম্পর্ক তৈরি করে নিন। এলোমেলো ভাবে এক এক দিন একেক জনের থেকে মাছ না কিনে  দুই তিন জন মাছ ব্যবসায়ী থকে সবসময় মাছ কিনলে দামে ও মানে ঠকতে হবে না। 

মাছ ধরার পর প্রথমে মাছ নরম থাকে তারপর আস্তে আস্তে একটু শক্ত হয়ে আবার পচন প্রক্রিয়া শুরু হলে আস্তে আস্তে নরম হতে থাকে এবং এক পর্যায় তা পচে যায়।

খুব তাজা মাছের গায়ে একটা পিচ্ছিল, স্লাইমি  ভাব থাকে যে টা মাছ শক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত থাকে।  শক্ত হওয়ার পর আস্তে আস্তে মাছের পিচ্ছিল ভাবটা কমতে থাকে এবং এক পর্যায়ে আর  মোটেও থাকে না।

তাজা মাছের নাভি থাকবে খুব সুন্দর ও চকচকে, পচা মাছের নাভি থাকবে কালচে ও পচা গন্ধ ও পচা রস বের হতে থাকবে । তাই মাছ কিনার আগে মাছের নাভি দেখতে হবে। 

৩) তাজা মাছ কখনো শক্ত হবে না, আবার নরমও হবে না একটা তূল তুলে ভাব থাকবে। আঙ্গুল দিয়ে চাপ দিলে যে মাছ একদম শক্ত, বুঝবেন যে সেটা ফ্রিজে রাখা ছিল।

আর যদি আঙুল দিলেই দেবে যায় ভেতরে, বুঝবেন মাছের পচন শুরু হয়েছে। তাজা মাছে আপনি আঙুল দিয়ে চাপ দিলে দেবে যাবে। কিন্তু আঙুল সরিয়ে নিলেই জায়গাটা ঠিক হয়ে যাবে।

৪) তাজা মাছের চোখ সবসময় স্বচ্ছ হবে। একদম ঝকঝকে চোখ হবে, দেখলে মনে হবে মাছটি জীবন্ত। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই চোখ ঘোলাটে হয়ে আসে।

যত সময় যায়, চোখ তত ঘোলাটে হয়। ফরমালিনে মাছের মাংস পচে না ঠিকই, কিন্তু চোখের জীবন্ত ভাব নষ্ট হওয়া ঠেকানো যায় না। চোখ দেখলেই চিনে নিতে পারবেন তাজা মাছ।

৫) মাছের কানকো দেখাটা তাজা মাছ চেনার একটা ভাল উপায়। যদিও মাছের কানকোতে এখন রং মিশিয়ে রাখেন দোকানিরা।

তাই শুধু কানকো দেখে মাছ কিনবেন না। জেনে রাখুন, তাজা মাছের কানকো হবে তাজা রক্তের রঙের এবং পিচ্ছিল, স্লাইমি ভাব থাকবে।

৬) চোখ আর কানকো দেখার পর মাছের শরীর দেখুন। মাছের শরীর কি চকচকে আর উজ্জ্বল রূপোলী রংয়ের? বিশেষ করে সুপার শপের মাছে দেখবেন চকচকে রূপালি রঙের বদলে হলদে বা অন্য রঙের আভা দেখা যায় মাছের গায়ে।

এতে বুঝে নেবেন যে মাছটি অতি অবশ্যই অনেক দিনের পুরনো। তাজা মাছ চকচক করবে, সময় যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চকচকে ভাব একেবারেই ম্লান হয়ে যাবে, তা সে যতই ফরমালিন দেওয়া হোক না কেন।

৭) তাজা মাছের গন্ধ হবে জলের মত, সামুদ্রিক মাছ হলে সমুদ্রের মত। শসার গন্ধের সঙ্গেও মিল পেতে পারেন। যে মাছ থেকে দুর্গন্ধ আসবে, সেটা নিঃসন্দেহে তাজা মাছ নয়।

৮) জিওল মাছ যেমন শিং, মাগুর, শোল ইত্যাদি কিনতে গেলেও সাবধান। আজকাল দোকানিরা মরা জিওল মাছকেও তাজা বলে ধরিয়ে দিতে পারেন।

জিওল মাছ যদি ট্যাংকে ঘোরাফেরা করে, ধরতে গেলে ছটফট করে তাহলে সেই মাছ তাজা  আর আগে থেকে বের করে সাজিয়ে রাখা মাছ তত তাজা নাও হতে পারে।

৯) সুপার শপের কেটে রাখা মাছ বা ফিস ফিলে কিনতে চান? কাটা মাছের রং লক্ষ্য করুন, তাজা মাছের রঙ হবে উজ্জ্বল  আরা রঙ যত বিবর্ণ, মাছ তত পচা।

১০) চিংড়ি মাছের ক্ষেত্রে কিন্তু একটু ভিন্ন ভাবে পরীক্ষা করতে হবে , যেমন: যে সকল চিংড়ি মাছ সাদা জাতের সেগুলি লাল হয়ে গেলে বুঝতে হবে, মাছ পচে গেছে।

চিংড়ি মাছ পচে যাওয়ার আরেকটি লক্ষণ হল মাছের উপর কালো কালো দাগ পড়া। পচা চিংড়ি মাছের মাথা ঝুলে যাবে – মনে হবে এখনি একটু টান দিলে খসে পড়বে মাথা আর মাছ থকে গন্ধ বের হবে।

অন্যদিকে যদি চিংড়ি মাছের খোসা শক্ত আর ক্রিসপি থাকে, তাহলে মাছ তাজা। তাছাড়া তাজা চিংড়ি মাছ ধরলে পিচ্ছিল ও দেখতে চকচকে হবে আর কোন বাজে গন্ধ থকবে না।

Leave a Reply

Item added To cart
X